free
hit counter
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » নীলফামারীর খবর » ডোমারে গভীর রাতে বাড়িতে অতর্কিত হামলায় ৫ জন আহত 

ডোমারে গভীর রাতে বাড়িতে অতর্কিত হামলায় ৫ জন আহত 

মোসাদ্দেকুর রহমান সাজু, ডোমারঃ
নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ১০ নং হরিণচড়া ইউনিয়নে ধরনীগঞ্জ হাট সংলগ্ন এলাকার বাসিন্দা জাহিদুলের বাড়িতে অতর্কিত ভাবে গভীর রাতে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে।এ ঘটনায় আহত ৫ জন বোড়াগাড়ী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আহত ব্যক্তিরা হলেন, হরিহরা এলাকার মৃত কছিমদ্দিনের বাক প্রতিবন্ধী দুই ছেলে আনিছুর রহমান (৪৮) এবং আমিনুর রহমান (৪৫), অপর তিন জন একই পরিবারের মৃত মান্নানের স্ত্রী ছামছুন নেহার, আমিনুর রহমানের স্ত্রী নুর জাহান এবং আনিছুর রহমানের স্ত্রী ওহেদা বেগম।

এজাহার সুত্রে জানাযায় সোমবার গভীর রাত আনুমানিক দেড়টার সময় হংশরাজ শেওটগাড়ী গ্রামের মৃত আফাজ উদ্দিনের ছেলে মোহাম্মদ আলীর নির্দেশনায় একদল সন্ত্রাসীর সংঘবদ্ধ দলসহ অস্ত্র সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া এই হামলা চালায়। এজাহারে আরও জানাযায়, মোহাম্মদ আলীসহ তার পরিবারের লোকজন দীর্ঘদিন ধরে জাহিদুল ইসলামের বাড়ির বসত ভিটা বেদখল করিবার পায়তারা চালিয়ে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় মোহাম্মদ আলীর পরিবারবর্গ হেফাজুলসহ তার সহযোগী অজ্ঞাতনাম ১৫/২০ জন মিলে সন্ত্রাসী কায়দায় জাহিদুলের বাড়িতে লাঠিসোডা, লোহার রড, ধারালো ছুরি এবং দেশীয় বে-আইনি অস্ত্রে সস্ত্রে সজ্জিত হইয়া তার বাড়িতে অনুপ্রবেশ করে  ঘরের বেড়া আসবাবপত্র ভাংচুর করিয়া তাদেরকে এলোপাতাড়ি ভাবে ডাংমার করার পাশাপাশি ধারালো ছুরি দ্বারা শরীরের বিভিন্ন জায়গায় কোপাতে থাকে এবং মহিলাদের শরীরের বিভিন্ন স্পর্শকাতর জায়গায় হাত দিয়ে তাদের শ্লীলতাহানি করে। তারা চলে যাওয়ার প্রাক্কালে ঘরে রাখা জমি বন্ধকের নগদ দেড় লক্ষ টাকা চল্লিশ বস্তা ধান লুটপাট করিয়া লইয়া যাওয়ার সময় বাড়ীঘরে আগুন লাগিয়ে দেয় এবং তাদেরকে প্রানে মেরে ফেলার নানাবিধ হুমকিও প্রদর্শন করেন। পরে এলাকাবাসী ফায়ার সার্ভিস অফিসে ফোন দিলে ফায়ার সার্ভিসের লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে।

এ হামলার ঘটনায় জাহিদুল ইসলাম বাদী হয়ে ২৫ জনের নাম উল্লেখসহ আরও ১৫/২০ জনের নাম অজ্ঞাত রেখে ডোমার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদ উন-নবীর হাতে অভিযোগ পত্রটি দাখিল করেন।

হামলার বিষয়ে হরিহরা ৭ নং ওয়ার্ড এলাকার  ইউপি সদস্য আব্দুল করিম ঘটনায় সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, জাহিদুলের জমির উপর দিয়ে নদী গেছে, নদী খনন করার পর এক সাইটের যে জায়গাটুকু ফাঁকা রয়েছে সেখানে ২ বছর আগে জাহিদুল বাড়ীঘর তুলে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করছে। এখন মোহাম্মদ আলী ও তার পরিবারবর্গের দাবী এই জমি তাদের, সেখানে জাহিদুল কেন বাড়িঘর তুলেছে এই সুবাদে তিন দিন আগে তাদের ঘরবাড়ি ভেঙে দিয়ে তাদের মারপিট করে। এটাই হচ্ছে গন্ডগোলের মূল কারণ।

এবিষয়ে ১০ নং হরিণচড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান রাসেল রানা বলেন, ঘটনা আমরাও তদন্ত করতেছি। এখানে পূর্ব জেরে উদ্দেশ্যে প্রনোদিত হয়ে কে বা কাহারা এলাকার মানুষকে ইন্দোন দিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। পাশাপাশি আমি নৌকা প্রতিক নিয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছি এটা আমার যে প্রতিপক্ষ সহজেই মেনে নিতে পারছেনা।

ঘটনার বিষয়ে মোহাম্মদ আলীর ছেলে আখতারুজ্জামানের সাথে মুঠোফোনে কথা বলতে চাইলে তিনি মুঠোফোনে কথা বলতে অসম্মতি জানিয়েছেন।

ঘটনার বিষয়ে মোহাম্মদ আলীর আরেক ছেলে  দেলোয়ারের মুঠোফোন ০১৭৭০-৭১৪৪৬৫ নম্বরে একাধিক বার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তার বক্তব্যে প্রদান করা সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে ডোমার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহমুদ উন-নবী বলেন অভিযোগ পেয়েছি, প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।

Check Also

ডোমারে এ.এন. ফাউন্ডেশনের মেধা মূল্যায়ন পরিক্ষা ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত

  ডোমার (নীলফামারী) থেকেঃ নীলফামারীর ডোমারে অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এ.এন. ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেনীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *