free
hit counter
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » নীলফামারীর খবর » একজন মানবিক শিক্ষক ও আসহায় রিকশা চালক

একজন মানবিক শিক্ষক ও আসহায় রিকশা চালক

আরফিনুল ইসলাম, নীলফামারী প্রতিনিধিঃ

গত ১৯ আগস্ট ২০২২ সকাল বেলা বের হয়েছিলেন বাজার করতে। ফেরার পথে রিক্সা খুঁজছেন এমন সময় দেখতে পান একজন বয়স্ক রিকশাচালক, এমনিতেই বয়স্ক চালকের রিক্সায় কেউ উঠতে চায় না, তার উপর রিক্সাটা পায়ে চলে, গতি কম…. রিক্সাটাও একেবারে ভাংগা, কোন রকম চলছে.. বয়স্ক মানুষটার রিক্সায় চড়ে তিনি বাসায় আসলেন, ভাড়া মিটিয়ে জিজ্ঞেস করলেন চাচা এই মূহুর্তে কি পেলে আপনার ভালো লাগবে মানে কেউ যদি কিছু দিতে চায় আপনি কি চাইবেন? রিক্সা চালক বললেন, আমার রিক্সাটা ভাংগা, এটা ঠিক করে দিলে আমার জন্য ভালো হয়।

এমন একটা উত্তর শুনে নীলফামারী সরকারি কলেজ এর রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহকারী অধ্যাপক শিক্ষক নুরুল করিম আর চুপ থাকতে পারলেন না। যিনি এ এলাকায় মানবিক শিক্ষক নামে পরিচিত এবং শিক্ষকতার পাশাপাশি জড়িত আছেন বিভিন্ন সামাজিক কর্মকাণ্ডে। ধর্মের পাশাপাশি সমাজের জন্য এলাকার মানুষের জন্য কিছু করাই যার নেশা। তিনি সিদ্ধান্ত নিলেন কিছু একটা করা দরকার। যেই ভাবা সেই কাজ।

মানবিক শিক্ষক খ্যাত নুরুল করিম সিদ্ধান্ত নিলেন তাকে একটা অটো রিক্সা ক্রয় করে দিবেন। অটোরিক্সা পেলে তার পরিশ্রম কম হবে, ইনকাম বাড়বে। ভাংগা রিক্সার ছবি তুলে ফেজবুকে পোস্ট দিলেন. তার বন্ধু ও পরিচিতজনরা এগিয়ে আসলেন… অটোরিক্সার জন্য প্রয়োজনীয় টাকা ১ ঘন্টার মধ্যে উঠে আসে। আজকে অন্যান্যদের সমন্বয়ে বয়স্ক রিক্সা চালককে একটা অটো রিক্সা ক্রয় করে দেন।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডায়াবেটিস হাসপাতালের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ মুজিবুল হক চৌধুরী শাহীন, এডভোকেট নুরুল জাকি স্টালিন এবং ডায়াবেটিস হাসপাতালের কর্মকর্তাগণ।

রিক্সা তুলে দেওয়ার ছবি ফেজবুকে পোস্ট করে নুরুল করিম লিখেছেন।

“আলহামদুলিল্লাহ। আপনাদের ভালোবাসায় চাচা একটা অটো রিক্সা পেল.. এখন চাচার কষ্ট কম হবে, ইনকাম একটু বেশি হবে..
চাচার মুখে হাসি আমাদের প্রশান্তি।”

এ বিষয়ে কথা হয় শিক্ষক নুরুল করিমের সাথে তিনি জানায়, মানুষ হিসেবে মানুষের পাশে দাড়ানোটা নৈতিক দায়িত্ব। এই রকম একজন বয়স্ক মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে পেরে সত্যিই ভালো লাগছে। তাছাড়া এই কাজটা করতে আমার নিজের কোন টাকা খরচ হয়নি, আমার বন্ধুরা আমাকে দিয়েছে আমি শুধু পোস্ট অফিসের ভূমিকা পালন করছি।

উল্লেখ্য, শিক্ষক নুরুল করিম শিক্ষার্থীদের ফ্রী পাঠদান এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদেরকে বই খাতা কিনে দেন, ভর্তি ফরম পুরন সহ যেকোনো প্রয়োজনে সহায়তা করে। তার ফ্রী কোচিং থেকে প্রতিবছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ দেশের বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় অসংখ্য শিক্ষার্থী চান্স পায়। এই বছর সংখ্যাটা ৪০ এর অধিক। শিক্ষক হিসেবে তার যেমন রয়েছে অনেক খ্যাতি তেমনি একজন মানবিক মানুষ হিসেবেও তার রয়েছে ব্যাপক সুনাম।

Check Also

ডোমারে এ.এন. ফাউন্ডেশনের মেধা মূল্যায়ন পরিক্ষা ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত

  ডোমার (নীলফামারী) থেকেঃ নীলফামারীর ডোমারে অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এ.এন. ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেনীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *