free
hit counter
Download Free FREE High-quality Joomla! Designs • Premium Joomla 3 Templates BIGtheme.net
Home » নীলফামারীর খবর » পুরাতন ইট দিয়ে ড্রেন নির্মান, এলাকাবাসীর প্রতিবাদেও নির্বিকার ইউপি চেয়ারম্যান জুন

পুরাতন ইট দিয়ে ড্রেন নির্মান, এলাকাবাসীর প্রতিবাদেও নির্বিকার ইউপি চেয়ারম্যান জুন

শাহজাহান আলী মনন, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
প্রায় ২ লাখ ৩৫ হাজার টাকা বরাদ্দের ড্রেন নির্মানে ব্যবহার করা হচ্ছে পুরাতন ইট। ইউপি চেয়ারম্যান নিজে এই অনিয়ম করায় এলাকাবাসী প্রতিবাদ জানায়। তারপরেও কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। নিম্নমানের কাজ করে সরকারী অর্থ লোপাটের বিচার দাবী করেছেন তারা।
জানা যায়, এলজিএসপি-৩ এর আওতায় নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বোতলাগাড়ী ইউনিয়নের শ্বাষকান্দর চেংমারীপাড়ায় প্রায় ৬৬ মিটার দৈর্ঘ্যের একটি ড্রেন নির্মান করা হচ্ছে। ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সরকার জুন নিজেই এই কাজ করছেন। এতে ওইস্থানের পূর্বের ড্রেন, রাস্তার সোলিং ও সাইড থেকে পাওয়া পুরাতন ইটই পূন:রায় ব্যবহার করা হয়েছে।
এলাকাবাসীর দাবী সিডিউল অনুযায়ী পুরাতন ইটের মধ্যে যেগুলো ব্যবহারযোগ্য সেগুলো শুধু ড্রেনের সোলিংয়ে বিছিয়ে দেয়া হবে। কিন্তু চেয়ারম্যান সোলিংসহ ড্রেনের দুইপাশের গাঁথুনিও ওই পুরাতন ও ভাঙ্গা নষ্ট হয়ে যাওয়া ইট দিয়েই করেছেন। আমরা এলাকার কয়েকজন প্রতিবাদ করায় দুই তিন দিন বন্ধ রাখে। পরে আমাদের অনুপস্থিতির সুযোগে দ্রুত কাজ শেষ করেন।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গেলে দেখা যায় প্রায় ৮০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। বাকী কাজের ক্ষেত্রে পুরাতন ইটই ব্যবহার করা হচ্ছে। এসময় কোন নতুন ইটের অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি। এলাকাবাসী উপস্থিত হয়ে আরও বলেন যেভাবে কাজ করা হচ্ছে তাতে বেশিদিন টিকবেনা। তাছাড়া উত্তর দিকে আগের ড্রেনের সাথে সংযোগ না দেয়ায় ওইদিকের পানি নিষ্কাশন হবেনা।
উপজেলা প্রকৌশল অফিসের সাইট অফিসার প্রকৌশলী আতাউর রহমান মোবাইলে জানান, কাজটা মূলতঃ এলজিএসপি-৩ এর অধীনে হওয়ায় তা সম্পূর্ণরুপে ইউপি চেয়ারম্যানের তত্বাবধানের বিষয়। আমরা শুধু প্রকল্পের ইস্টিমেট (পরিকল্পনা) করে দেই। একদিন প্রকল্পস্থলে গিয়ে মিস্ত্রিদের দেখিয়ে বুঝিয়ে দিয়ে এসেছি। এরপর সব চেয়ারম্যানের দায়িত্ব। তিনি নিজেই কাজটা করছেন। পুরাতন ইট ব্যবহার করে থাকলে তা চেয়ারম্যানের ব্যাপার।
এব্যাপারে জানতে ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান সরকার জুনের মোবাইল ফোনে কল দেয়া হলে তিনি বলেন, পুরাতন ইট কি নদীত ফিক্কি দেমো? ওইলাওতো কামত লাগের নাগিবে। তোমরা এইলা ছোট কামত কেনে নজর দেন? বড় বড় কামত কত দূর্নীতি হয়ছে তাতে তো যান না। যত নীতি দেখান হামার কামত আসি।

Check Also

ডোমারে এ.এন. ফাউন্ডেশনের মেধা মূল্যায়ন পরিক্ষা ও পুরস্কার বিতরন অনুষ্ঠিত

  ডোমার (নীলফামারী) থেকেঃ নীলফামারীর ডোমারে অলাভজনক প্রতিষ্ঠান এ.এন. ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে একাদশ ও দ্বাদশ শ্রেনীর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *